চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

 চুল পড়ে যাওয়া বর্তমানে অনেক আলোচিত একটি সমস্যা।যে সমস্যার ভুক্তভোগী নারী এবং পুরুষ উভয়ই।এটি মানুষের সৌন্দর্য নষ্টের অন্যতম একটি কারণ।আপনি যদি চুল পড়া বন্ধ করার উপায় সম্পর্কে খুঁজছেন তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য।

আজ আমরা চুল পড়া বন্ধ করার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করব। 

আজকের আলোচনার বিষয় নিচে উল্লেখ করা হলো।

পেজ সূচিপত্রঃ

বর্তমানে চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যাটি খুবই সাধারণ একটি বিষয়।আমরা প্রতিনিয়তই অভিযোগ করে যাচ্ছি চুল পড়ে যাচ্ছে।কিন্তু খুঁজে বের করেছি কি যে আসলে চুল কেন পড়ে যায়?না, অনেকেই এত গভীরভাবে চিন্তা করে না যে আসলে সমস্যাটির কারণ কি।চলুন তাহলে জেনে নিন চুল কেন পড়ে যায়।

চুল কেন পড়ে যায় এর বিভিন্ন রকম কারণ হতে পারে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু কারণ হলো-
  1. শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টির অভাব
  2. চুলের বিভিন্ন রকম কেমিক্যাল ব্যবহার করা যা অন্যতম একটি কারণ
  3. পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব
  4. অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা এবং মানসিক চাপ 
  5. চুলের প্রতি অযত্ন
  6. অতিরিক্ত তাপমাত্রা চুল পড়ার একটি বিশেষ কারণ
  7. শরীরে পর্যাপ্ত পানির অভাব
  8. মাথায় অতিরিক্ত খুশকির কারণে চুল পড়ে যায়
  9. হরমোনাল ইম ব্যালেন্স 
  10. বিভিন্ন রকম শারীরিক অসুস্থতাও হতে পারে চুল পড়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ।

উপরোক্ত কারণগুলো হতে পারে প্রাপ্তবয়স্ক অথবা অপ্রাপ্তবয়স্ক উভয়ের জন্যই চুল পড়ে যাওয়ার যুক্তিসঙ্গত কারণ। আশা করছি চুল কেন পড়ে যায় বিষয়টি আপনাদের কাছে স্পষ্ট।

কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়

আমরা অনেকেই হয়তো জানি না কোন খাবার গুলো আমাদের চুলের জন্য ভালো বা কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়।আজকের লেখাটিতে এ বিষয়ে আমরা জানাবো। তবে জেনে নেই কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়।

  1. আমিষঃ আমিষ এমন একটি খাবার যা চুলের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।আমিষ চুলকে ভাঙ্গন থেকে রক্ষা করে এবং মজবুত করে। তাই প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় আমিষ রাখতে হবে।
  2. বাদামঃ খাদ্য তালিকার মধ্যে অন্যতম ক্যালরিযুক্ত খাবার হলো বাদাম। বাদামের গুণাবলীর কোন শেষ নেই। এটি আমাদের চুল ভালো রাখতে অনেক সহায়তা করে থাকে।
  3. ডিমঃ ডিম হলো অনেকগুলো ভিটামিনের সমন্বয় গঠিত প্রোটিন জাতীয় খাবার। ডিমের মতো পুষ্টি অন্য কোন খাবারে বিদ্যমান নেই। তাই এটি নিঃসন্দেহে শরীরে সব ধরনের পুষ্টির চাহিদা নিবারণ করে থাকে।
  4. শাকসবজিঃ চুল পড়া কমাতে শরীরে বিভিন্ন রকম ভিটামিনের প্রয়োজন হয়ে থাকে। যা বিভিন্ন রকম সবুজ শাকসবজিতে রয়েছে। তাই প্রচুর পরিমাণে সবুজ শাকসবজি খেতে হবে এটি চুল পড়া কমাতে সহায়ক।
  5. গাজরঃ গাজরে রয়েছে ভিটামিন এ কমাতে সহায়তা করে চুলের গোড়াকে শক্ত করে।
  6. পানিঃ পানি নিঃসন্দেহে আমাদের শারীরিক প্রতিটি অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের জন্য জরুরী। শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি সরবরাহ না থাকলে শুধু চুল পড়ে যাওয়া নয়,আরো বিভিন্ন ধরনের সমস্যার দেখা দেয়। শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি চুলকে সতেজ রাখতে এবং চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।
সুতরাং কোন খাবারগুলো খেলে চুল পড়া হ্রাস পায় উপরে লেখাটি পড়ে আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন।

চুল পড়া বন্ধ করার ভিটামিন

অচিরেই চুল পড়ে সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এমন ব্যক্তিদের আজ আমরা তার সমাধান নিয়ে আলোচনা করব। চুল পড়া বন্ধ করার উপায় সম্পর্কে অনেকেই অবগত নয়। কিন্তু আপনারা কি জানেন চুল পড়া বন্ধ করার ভিটামিন রয়েছে? সকলের হয়তো জানা নেই।


চুল পড়া বন্ধ করার জন্য রয়েছে ভিটামিন এ।যাদের অতিরিক্ত চুল পড়ে যায়, তাদের চুলে ভিটামিন এ প্রয়োগ করে সমস্যার সমাধান পাওয়া যেতে পারে। ভিটামিন এ চুলের জেল্লা ধরে রাখতে সহায়তা করে। চুলের বিভিন্ন প্রোডাক্ট গুলোতে ভিটামিন এ ব্যবহৃত করা হয়। তাই চুল পড়া বন্ধ করার ভিটামিন হিসেবে ভিটামিন এ সর্বোৎকৃষ্ট উপাদান হিসেবে বিবেচিত।

চুল পড়া বন্ধ করতে চুলের যত্ন

আমরা সর্বদাই চুল পড়া বন্ধ করার উপায় খুঁজে থাকে। কিন্তু এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দেই না যেটি সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সেটি হলো, চুল পড়া বন্ধ করতে চুলের যত্ন।  চুলের যত্ন না করলে চুল ভালো থাকবে কি করে? আসুন তাহলে জেনে নেই চুল পড়া বন্ধ করতে চুলের যত্ন কিভাবে করতে হবে।
  1. অয়েল মেসেজঃ চুলের যত্নের কথা বলতে গেলে অয়েল মেসেজের কোন বিকল্প নেই। অয়েল বা তেল হল চুলের খাদ্য, যা চুলের গোড়া শক্ত করে এবং চুলকে লম্বা হতে সহায়তা করে। তাই নিয়মিত অয়েল মেসেজ করতে হবে।
  2. ঠান্ডা পানি দিয়ে চুল পরিষ্কার করাঃ চুলে গরম পানি নয়, সর্বদাই ঠান্ডা পানি দিয়ে চুল পরিষ্কার করতে হবে। কারণ, গরম পানি ব্যবহারের ফলে চুল উঠে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অন্যথায় ঠান্ডা পানি চুলকে ভালো রাখে।
  3. হেয়ার প্যাক ব্যবহার করাঃ চুলের যত্নের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে প্যাক তৈরি করে ব্যবহার করা যেতে পারে। হেয়ার প্যাক নিঃসন্দেহে চুলের জন্য অনেক উপকারী।
  4. আলতোভাবে চুল মোছাঃ ভেজা চুলকে তোয়ালে দিয়ে আলতোভাবে মুছে নিতে হয়। কারণ ভেজা অবস্থায় চুল অনেক নরম থাকে। ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
  5. নিয়মিত শ্যাম্পু করাঃ শ্যাম্পু চুলকে পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করে। তাই একদিন পরপর শ্যাম্পু করা উচিত। এতে করে চুলে ময়লা জমে থাকে না।
  6. চুলে হিট না দেয়াঃ চুলে অতিরিক্ত হিট প্রদান করা মোটেও ঠিক নয়। এতে করে খুব অল্প সময়ের মধ্যে চুল নষ্ট হয়ে যায়।
  7. কন্ডিশনার ব্যবহার করাঃ চুলকে মসৃণ করার জন্য কন্ডিশনার ব্যবহার করা জরুরী। আলতোভাবে কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। যেন চুলে অতিরিক্ত কেমিক্যাল এর প্রয়োগ না ঘটে।
চুলের যত্নের ক্ষেত্রে উপরোক্ত কাজগুলো করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চুল পড়া বন্ধ করার উপায় এর মধ্যে এগুলো অন্যতম কার্যকর।

চুল পড়া বন্ধ করার ঘরোয়া উপায়

চুল পড়া বন্ধ করার জন্য কিছু ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করা যেতে পারে যেগুলো চুল পড়া কমাতে যথেষ্ট সহায়ক।
চুল পড়া বন্ধ করার ঘরোয়া উপায় কি কি তা নিচে উল্লেখ করা হল-
 
  • অ্যালোভেরার জেল দিয়ে পেস্ট তৈরি করে চুলে লাগিয়ে এক ঘন্টা অপেক্ষা করুন। এরপর চুল শ্যাম্পু দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। এটি চুলের জন্য অনেক উপকারী।
  • একটি ডিমের কুসুমের সাথে সামান্য লেবুর রস এবং অলিভ অয়েল মিশ্রিত করে ব্যাগ তৈরি করে চুলে ব্যবহার করতে পারেন। এটি চুল পড়া বন্ধ করার উপায় এর মধ্যে অন্যতম।
  •  চুল পড়া কমাতে পেঁয়াজের রস ব্যবহার করতে পারেন। পেঁয়াজের রস অত্যন্ত কার্যকরী।
  • নারিকেল তেল এবং মেথি একত্রে মিশে চুলে ব্যবহার করতে পারেন।
  • অলিভ অয়েল, মেহেদী পাতা এবং ডিমের সংমিশ্রণে প্যাক তৈরি করে চুলে লাগিয়ে ফেলুন। এক ঘণ্টা পরে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
  • জবা ফুল পেস্ট করে মাথায় লাগাতে পারেন। এটি চুলের শুষ্কতা দূর করে, চুলকে উজ্জ্বল এবং মসৃণ করে।
উপরে উল্লেখিত ঘরোয়া উপায়গুলো অবলম্বন করে আশানুরূপ ফল পাওয়া যেতে পারে।

চুল পড়া বন্ধ করার তেল

চুল পড়া বন্ধ করার তেল সম্পর্কে হয়তো বা আমরা অনেকেই জানি। কিন্তু এই তেলটি বাজারে পাওয়া যায় নাকি ঘরে তৈরি করতে হয় সেটি নিশ্চয়ই সবার জানা নেই। চলুন তাহলে জেনে নেই চুল পড়া বন্ধ করার তেল কোনটি।

চুল পড়া বন্ধ করার তেল হিসেবে সবচেয়ে কার্যকরী হল পেঁয়াজের তেল। পেঁয়াজের তেলকে বলা হয় প্রাকৃতিক কন্ডিশনার। পেঁয়াজ পেস্ট করে অথবা রস নিয়ে সেটিকে নারিকেল তেলের সাথে কিছুক্ষণ জাল করতে হবে। এরপর তেল ঠান্ডা হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করে তেলটিকে ছাকনি দিয়ে ছেঁকে নিতে হবে। একটি বোতলে ঢেলে নিয়ে নিয়মিত ব্যবহার করুন তাহলে ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে।

অন্যথায় অনুরূপভাবে পেঁয়াজের পরিবর্তে আমলকি দিয়ে ঠিক একই ভাবে তেল তৈরি করে ব্যবহার করা যেতে পারে। যার ফলে চুল ভেঙে যাওয়া, চুল পড়া হ্রাস পাবে। মনে রাখবেন, তেল হল চুলের খাদ্য যা ব্যতীত চুলকে ভালো রাখা সম্ভব নয়।

চুল পড়া বন্ধ করার উপায়-শেষ কথা 

চুল পড়া নিত্যদিনের সমস্যা। ভুক্তভোগীরা এ সমস্যার সমাধান প্রতিনিয়তই খুঁজতে থাকে। চুল পড়া বন্ধ করার উপায় সম্পর্কে আমরা আজকের আর্টিকেলটিতে সম্পূর্ণ তথ্য প্রদান করার চেষ্টা করেছি। আশা করছি আমাদের লেখাটি পড়ে আপনারা চুল পড়া বন্ধ করার উপায় সম্পর্কে একটি পূর্ণাঙ্গ ধারণা পেয়েছেন।

আমাদের লেখাটি যদি ভালো লেগে থাকে এবং আপনাদের কাছে তথ্যবহুল মনে হয় তাহলে অন্যদের সাথে অবশ্যই শেয়ার করবেন। লেখায় কোন ভুল হলে ক্ষমা করবেন। লেখাটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url