মুখের তিল দূর করার উপায়

প্রত্যেকটি মানুষ নিজের ত্বককে সুন্দর রাখার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে। কারণ নিখুঁত সৌন্দর্য কে না চায়।অনেক সময় মুখে বিভিন্ন রকম দাগ হয়ে থাকে যা সৌন্দর্যকে নষ্ট করে দেয়। বিভিন্ন উপায়ে দাগ সরানো সম্ভব। কিন্তু অনেকের মুখেই তিল হয়ে থাকে যেটি খুবই জটিল একটি সমস্যা। আর তিল সরানো এত সহজ কাজ নয়। অধিকাংশ মানুষ এই সমস্যায় ভুক্তভোগী।


অনেক উপায় অবলম্বন করেও তিল মুখ থেকে দূর করতে পারছেন না? চিন্তার কোন কারণ নেই। এ বিষয়ে আমরা আপনাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করব। আজকে আমরা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এই বিষয়টি মুখের তিল দূর করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। মুখে কত প্রকার তিল হয়ে থাকে এবং এগুলো দূর করতে হলে কি কি করণীয় সে বিষয়ে জানতে হলে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

মুখের তিল দূর করার উপায় সহ যে সকল বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করব তা নিচে উল্লেখ করা হলো।

পেজ সূচিপত্রঃ 

প্রায় প্রতিটি মানুষেরই শরীরে তিল থাকে। তিল অনেকের হতে পারে জন্মগত এবং পরবর্তীতেও হয়ে থাকে। মুখের তিল দূর করার উপায় সম্পর্কে জানার আগে আপনাকে জানতে হবে আসলে তিল কি।


শারীরিক গঠন প্রক্রিয়ার কিছু পরিবর্তনের ফলে তিল দেখা দেয়।মেলানোসাইটস নামের একটি উপাদান আমাদের ত্বকের রং নির্ধারণ করে থাকে। এই উপাদানটি যদি আমাদের ত্বকের কোন অংশে একত্রে মিশে দলা পাকিয়ে যায় তখন ত্বকের উক্ত অংশে একটু পরিবর্তন দেখা যায়। যেমন সে অংশটি একটু উঁচু হয়ে থাকে। এই অংশটি হল তিল।

তিল কে ইংরেজিতে কী বলা হয়? 

প্রত্যেকটি ব্যক্তিরই শরীরে কোন না কোন অংশে তিল থাকে। তিল কে ইংরেজিতে কী বলা হয় জানেন? নিশ্চয়ই জানেন না। ইংরেজিতে তিল কে বলা হয় Mol (মোল)।

মানুষের শরীরে সর্বোচ্চ কতগুলো তিল হয়?

তিল হলো একটি জিনগত এবং শারীরিক বৈশিষ্ট্য। সকলেরই তিল রয়েছে। কারো কম বা কারো বেশি। আপনি কি জানেন মানুষের শরীরে সর্বোচ্চ কতগুলো তিল হয়?

একজন মানুষের যখন বয়স বাড়ে তখন তার শরীরে তিলের পরিমাণও বৃদ্ধি পায়। আর মানুষের শরীরের সর্বোচ্চ ৪০ টি পর্যন্ত তিল হয়ে থাকে।

মুখে তিল কেন হয়?

অনেকের মুখে তিল দেখা যায়। মুখে যে তিল দেখতে ভালো লাগে যেটিকে বলা হয় বিউটি স্পট। কিন্তু এটি সংখ্যায় বেশি হলে আবার সৌন্দর্যকে নষ্ট করে দেয়। আর এই কারণে ভুক্তভোগী ব্যক্তি প্রতিনিয়ত মুখের তিল দূর করার উপায় খুঁজতে থাকে। উপায় খুঁজে বের করার আগে কারনটি খুঁজে বের করতে হবে যে তিল কেন হয়। তাহলে জেনে নেয়া যাক।

তিল হওয়ার অন্যতম আর একমাত্র কারণ হলো অতিরিক্ত রোদ। সূর্যের অতিরিক্ত তাপমাত্রা ত্বকের জন্য মোটেও ঠিক নয়। এতে থাকা বেগুনি রশ্মি ত্বকের অনেক ক্ষতি করে। যার ফলে তিল হয়ে থাকে। এছাড়াও দীর্ঘদিন কোন অসুখের জন্য চিকিৎসাধীন থাকলে এই সমস্যাটি হয়ে থাকে। কারণ দীর্ঘ সময় ধরে বিভিন্ন মেডিসিন শরীরে প্রবেশ করে। মেডিসিনের কারণে হতে পারে।
আশা করি উত্তরটি পেয়ে গেছেন।

তিল কত প্রকার?

তিল হয়ে থাকে এটি আমরা সকলেই জানি। কিন্তু তিল কত প্রকার ও কি কি এটা কি সকলেই জানে? হয়তো এ বিষয়টা নিয়ে এত গভীরভাবে চিন্তাই করেননি তাই না? একটু খেয়াল করলে দেখবেন প্রত্যেকের মুখের তিল কিন্তু এক নয়। তিলেরও প্রকারভেদ রয়েছে। তাহলে জেনে নিন তিল কত প্রকার।
তিল ৩ প্রকার হয়ে থাকে। যেমন-
  1. লাল তিলঃ অনেকের মুখে দেখবেন লাল লাল ছোট তিল হয়ে থাকে। অনেকেই হয়তোবা রং দেখে বুঝতে পারে না যেটি তিল। এটিও তিলের একটি প্রকারভেদ।
  2. বাদামী তিলঃ মুখে অনেক সময় দেখা যায় অসংখ্য বাদামী রঙের তিল হয়ে থাকে। এটি তিলের আরেকটি প্রকার।
  3. কালো তিলঃ কালো তিল প্রায় প্রতিটি মানুষেরই হয়ে থাকে। আর প্রত্যেকেই জানেন কালো তিল সম্পর্কে। কালো তিল চিনে না এমন ব্যক্তি নেই।

মুখের তিল দূর করার ঘরোয়া উপায় কি?

মুখের তিল একটি জটিল সমস্যা। যা সহজে পিছু ছাড়েনা। তাই আজ আমরা আপনাদেরকে মুখের তিল দূর করার ঘরোয়া উপায় কি সে সম্পর্কে জানাতে এসেছি। আমাদের দেয়া উপায়গুলো অবলম্বন করে দেখবেন অবশ্যই ভালো ফলাফল পাবেন।
  • বেকিং সোডা এবং ক্যাস্টর অয়েল দিয়ে সহজে তিল দূর করা সম্ভব। সামান্য ক্যাস্টর অয়েল নিয়ে সেখানে হাতের চিমটি দিয়ে বেকিং সোডা নিয়ে মিক্সড করে মুখের যে স্থানে তিল রয়েছে সেখানে লাগিয়ে দিন। কয়েক ঘন্টা এভাবেই ছেড়ে দিন। তারপর মুখ ভালো হবে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। কিছুদিন ব্যবহার করলে রেজাল্ট পেয়ে যাবেন।
  • ধনেপাতা পেস্ট করে তিলে লাগাতে পারেন। এটি ত্বকের জন্য অনেক উপকারী এবং তিলের বৃদ্ধিতে বাধা দেয়।
  • কলার খোসা হতে পারে তিল দূর করার অন্যতম উপাদান। কলার খোসা বেটে দিলে তিল দূর করে এবং ত্বককে ভালো লাগে।
  • রসুন পেস্ট করে লাগাতে পারেন। এটি তিল দূর করতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • ঘনঘন লেবুর রস দিতে পারেন। এটি তিলের হালকা করতে সহায়ক।
  • আলু স্লাইস করে কেটে নিয়ে সেটি দিয়ে তিলের উপর স্ক্রাব করতে পারেন। নিয়মিত এটি ব্যবহারের ফলে ধীরে ধীরে তিল অদৃশ্য হয়ে যাবে।
  • অ্যালোভেরা জেল বেশ কিছুক্ষণ তিলের উপর দিয়ে রাখতে হবে। কিছুদিন ব্যবহার করলে ফলাফল বুঝতে পারবেন।
  • ত্বকের উপকারের ক্ষেত্রে মধুর কোন জুড়ি নেই।নিয়মিত মধু লাগালে তিলের রং হালকা হতে থাকে এবং একসময় তা একদম চলে যায়।
আশা করছি মুখের তিল দূর করার উপায় গুলো অবলম্বন করে আপনারা উপকৃত হবেন।

মুখের তিল দূর করার হোমিও ঔষধ কোনটি?

মুখের তিল দূর করার উপায় রয়েছে বিভিন্ন রকম।ঘরোয়া ভাবে চেষ্টা করে যদি মনে হয় যে তিল সরানো সম্ভব হচ্ছে না এর পরবর্তী ধাপে হোমিও ঔষধ ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু তা অবশ্যই হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী। কারণ আমরা আপনাদের ধারণা বা পরামর্শ দিতে পারি কিন্তু নির্দিষ্ট চিকিৎসা নয়।
মুখের তিল দূর করার হোমিও ঔষধ কোনটি তা উল্লেখ করা হলো-
  1. Oleum Santali 
  2. Berberies Aquifolium 
  3. Thuja Occidentalis 
এই হোমিও ঔষধ গুলো দ্বারা মুখের ছোট ছোট তিল দূর করা সম্ভব।

মুখের তিল দূর করার ক্রিম কোনটি?

মুখে তিল বিভিন্নভাবে দূর করা সম্ভব। হতে পারে ঔষধ দ্বারা অথবা ক্রিম দিয়ে। আপনাদের সকলের কি জানা আছে মুখে তিল দূর করার ক্রিম কোনটি? হয়তো অনেকেই এ বিষয়ে অবগত নয়। মুখের তিল দূর করার ক্রিম সম্পর্কে জেনে নিন।
  • 24K Gold Antimelasma Facial Cream
  • Speckle killer
  • Balit Intensive Cream
এই ক্রিমগুলো ব্যবহারের ফলে মুখের তিল দূর হয়ে যায়। এই ক্রিমগুলো বিশেষভাবে এই সমস্যার সমাধানের উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয়েছে।

তিল না হওয়ার জন্য কোন বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে?

যারা মুখের তিল দূর করার উপায় সম্পর্কে অবগত হয়েছেন অবশ্যই পরবর্তীতে যেন এই সমস্যাটি না দেখা দেয় তাই এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে তা অবশ্যই জানা জরুরী। যে বিষয়গুলোতে সাবধান থাকবেন তা হলো-
  1. অতিরিক্ত তাপমাত্রায় বের হওয়ার কম চেষ্টা করুন।
  2. বাইরে গেলে ছাতা ব্যবহার করতে পারেন।
  3. অবশ্যই বাইরে যাওয়ার আগে সানস্ক্রিন লাগাতে হবে।
  4. রেডিয়েশন এড়িয়ে চলতে হবে।
  5. শরীরের খোলা অংশে সূর্যের আলো বেশি পড়লে উক্ত স্থানে তিল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই বাইরে যাওয়ার আগে যতটুকু সম্ভব শরীর ঢেকে বের হবার চেষ্টা করুন।
  6. অনেক তিল রয়েছে যেটি আস্তে আস্তে আকার পরিবর্তন করতে থাকে। সে ক্ষেত্রে অবহেলা করা যাবে না। কারণ এরকম তিলকে ক্যান্সারের লক্ষণ হিসেবে ধরা হয়।
  7. ঘরোয়াভাবে চেষ্টা করার পরে যদি সমস্যার সমাধান না হয় তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন।

মুখের তিল দূর করার উপায়-শেষ কথা

এমন কোন ব্যক্তি হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না যা শরীরে কোন তিল নেই। কিছু আমাদের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে এবং কিছু অসুখের লক্ষণ বলে বিবেচিত হয়। তিল যে ক্ষতি করে এমনটি নয়। কেউ চাইলে ইলেক্ট্রো সার্জারির মাধ্যমে চিরদিনের জন্য তুলে ফেলতে পারে। এতে কোন ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। অবাঞ্ছিত এবং বেশি পরিমাণে তিল কারোই কাম্য নয়। তাই চেষ্টা করবেন এই সমস্যাটি না হওয়ার জন্য সচেতনতা অবলম্বন করতে।

আজকে আমরা মুখের তিল দূর করার উপায় সম্পর্কে আপনাদের পর্যাপ্ত তথ্য প্রদান করার চেষ্টা করেছি। আশা করি উল্লেখিত উপায় দ্বারা আপনাদের এই সমস্যাটি সমাধান হয়ে যাবে। আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অন্যদের সাথে শেয়ার করবেন। লেখাটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।


Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url