ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায়

সুন্দর চেহারা নষ্ট করার জন্য বেশি কিছু প্রয়োজন নেই একটি সমস্যাই যথেষ্ট। তেমনি ভাবে একটি খুবই পরিচিত সমস্যা হলো মুখের ব্ল্যাকহেডস। অধিকাংশ মানুষ এই সমস্যায় ভুগছেন। কেউ পার্লারে গিয়ে প্রতিনিয়ত টাকা খরচ করছে। আবার কেউ একের পর এক প্রোডাক্ট ইউজ করছে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য। কিন্তু ফলাফল দেখবেন শেষে শূন্য। মনের মধ্যে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায় কি?

তাই আজকে আমরা আপনাদের জন্য এই সমস্যা থেকে বের হওয়ার কিছু টিপস নিয়ে এসেছি। ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায় সম্পর্কে আপনাদের জানাতে এসেছি। এই সমস্যাটি কেন হয়? কত রকম উপায় অবলম্বন করে এর সমাধান হয় তার প্রতিটি বিষয়ে থাকছে আজকের আর্টিকেলটিতে।

তাহলে বুঝতেই পারছেন আলোচনাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ যেহেতু এটি সৌন্দর্য বাঁচানোর প্রশ্ন। আর সুন্দর কেনা হতে চায়। চলুন তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে জেনে নেই ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায় সম্পর্কে।

পেজ সূচিপত্রঃ

প্রতিটি মানুষের ত্বক একই প্রকৃতির নয়। কারো ত্বক তৈলাক্ত আবার কারো খুবই শুষ্ক আবার কারো ক্ষেত্রে দেখা যায় স্বাভাবিক অর্থাৎ বেশি তৈলাক্ত নয় আবার বেশি শুষ্ক নয়। এ ধরনের ত্বকের অধিকারী ব্যক্তির সাধারণত ব্ল্যাকহেডস হয় না আবার হলেও খুব কম। চলুন তাহলে এখন জেনে নেই ব্ল্যাক হেডস কি? এরপর না হয় ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায় সম্পর্কে জানা যাবে।
ব্ল্যাকহেডস হল ত্বকে জমে থাকা ময়লা যা অচিরেই মুখের সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয়। যাদের ত্বক তৈলাক্ত তাদের মুখে বেশিরভাগ সময় তেল নির্গত হয়। আর সাধারণত এই তেলগুলো অধিকাংশ মানুষের নাকের দুপাশে এবং ঠোঁটের নিচে থাকে। তাই খেয়াল করে দেখবেন ব্ল্যাকহেডস বেশিরভাগ মানুষের নাকের উপরে এবং চারপাশে আবার ঠোঁটের নিচে দেখা যায়। এই তেল গুলো মৃত কোষ দ্বারা ত্বকে আবদ্ধ অবস্থায় থাকে যেটিকে বলা হয় ব্ল্যাকহেডস।

ব্ল্যাকহেডস কেন হয়?

বেশিরভাগ মানুষের ব্ল্যাকহেডস এর সমস্যা থেকেই থাকে। এই সমস্যাটিতে পড়ার আগে অবশ্যই জানা উচিত ব্ল্যাকহেডস কেন হয়? আজ আমরা আপনাদের ব্ল্যাকহেডস কেন হয় এ বিষয়টি নিয়ে জানাতে এসেছি। এর কারণগুলো নিচে থাকছে।
  • ত্বকে অতিরিক্ত ময়লা জমে থাকার কারণে ব্ল্যাকহেডস হয়ে থাকে।
  • বিভিন্ন ধরনের স্কিন প্রোডাক্ট এর কারণে হয়ে থাকে।
  • যাদের ওপেন পোরস বেশি তাদেরকে এ সমস্যা ভুগতে হয়।
  • অতিরিক্ত তৈলাক্ত ত্বকে বেশিই দেখা দেয়।
  • নিয়মিত মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার না করলে ব্ল্যাকহেডস হয়ে থাকে।
 ব্ল্যাক হেডস দূর করার উপায় জানার আগে এটি কেন হয় অবশ্যই জানা প্রয়োজন।

ব্ল্যাকহেডস দূর করার ঘরোয়া উপায় কি?

ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায় সম্পর্কে জানতে হলে অবশ্যই সর্বপ্রথম ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বন করা উচিত। ব্ল্যাকহেডস দূর করার ঘরোয়া উপায় কি? এ বিষয়ে জানার পর না হয় পরবর্তী ধাপগুলোতে যাওয়া যাক। কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি নিচে উল্লেখ করা হলো যেগুলো বেশ কার্যকর।
  1. দুধ ও বেকিং সোডাঃ এক চামচ বেকিং সোডা তে পরিমাণ মতো কাঁচা দুধ দিয়ে একত্রে মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে নিন। এরপর মুখে লাগিয়ে শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায় গুলোর মধ্যে অন্যতম।
  2. মধু ও লেবুঃ মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।
  3. মধু ও ডিমের সাদা অংশঃ ডিমের সাদা অংশের সাথে মধু মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। এটি স্কিনকে টানটান করে এবং পোরস দূর করে যার ফলে ব্ল্যাকহেডস হওয়ার কোন সুযোগ থাকে না।
  4. টুথপেস্ট ও লবণঃ টুথপেস্ট এর সাথে লবণ মিশিয়ে ব্ল্যাকহেডস এর ওপরে লাগিয়ে ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করলে সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।
  5. চিনি ও লেবুর রসঃ লেবুর রসের সাথে চিনি গলিয়ে ভালোভাবে স্ক্রাব করলে ব্ল্যাকহেডস গুলো নরম হয়ে আস্তে আস্তে চলে যায়।
  6. বাদাম ও গোলাপজলঃ বাদাম পেস্ট করে গোলাপ জলের সাথে মিশিয়ে মুখে লাগালে গায়ের রং তুলনামূলক ফর্সা হয় এবং ব্ল্যাকহেডস দূর হয়ে যায়।
নিয়মিত এই ঘরোয়া পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করলে আশা করা যায় ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে।

ব্ল্যাকহেডস দূর করার ক্রিম কোনটি?

ব্ল্যাকহেডস দূর করার জন্য ব্ল্যাকহেডস রিমুভিং ক্রিম পাওয়া যায়। শুধুমাত্র এই সমস্যাটির উদ্দেশ্য করেই এই ক্রিমটি তৈরি করা হয়েছে। যাদের অতিরিক্ত ব্ল্যাকহেডস রয়েছে তারা নিঃসন্দেহে ক্রিম গুলো ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও রেটিনল ক্রিম ব্যবহার করা যেতে পারে। এই ক্রিমের সাহায্যে ব্ল্যাকহেডস গুলো কমতে থাকে বাঁড়ার কোন সুযোগ থাকে না। এছাড়াও যাদের সেনসিটিভ স্কিন তারা অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন যে কোন ক্রিম ব্যবহারের আগে।

ব্ল্যাকহেডস দূর করার মাস্ক কোনটি?

ব্ল্যাক হেডস দূর করার উপায় রয়েছে অনেকগুলো এক্ষেত্রে মাস্ক খুবই কার্যকর। আপনাদের সকলের কি জানা আছে ব্ল্যাকহেডস দূর করার মাস কোনটি? না জানলে এক্ষুনি জেনে নিন।
ব্ল্যাকহেডস দূর করার জন্য বিভিন্নভাবে মাস্ক তৈরি করা যেতে পারে। যেমন-
  1. চিনি ও মধু দিয়ে
  2. লেবুর রস ও চিনি দিয়ে
  3. টক দই ও মধু দিয়ে
  4. টমেটো দিয়ে
  5. দারচিনি এবং মধু দিয়ে
  6. লেবুর রস এবং ওটস দিয়ে 
এ সকল উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে মাস্ক তৈরি করে যে জায়গায় ব্ল্যাকহেডস হয়েছে সেখানে লাগাতে হবে। ধুয়ে ফেলার আগে ভালোভাবে স্ক্রাব করে নিতে হবে। তাহলে ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে।
এছাড়াও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের স্ক্রাব পাওয়া যায় বাজারে যেগুলো ব্ল্যাকহেডস দূর করতে সহায়তা করে থাকে।

ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায়-শেষ কথা

আমাদের ত্বকের খুবই স্বাভাবিক একটি সমস্যা হলো ব্ল্যাকহেডস। যারা খুবই স্কিন সচেতন তারা প্রতিনিয়ত খুঁজতে থাকে। আর অনেকে হয়তো দেখেও এড়িয়ে যায় গুরুত্ব না দিয়ে। কিন্তু, দ্রুত এর সমাধান খুঁজে না বের করলে প্রতিনিয়ত বাড়তেই থাকে যা সৌন্দর্যকে নষ্ট করে দেয়। উপরে আলোচিত উপায় গুলো অবলম্বন করে খুব অল্প সময়ে সেই ব্ল্যাকহেডস দূর করা সম্ভব।

আজকের আর্টিকেলটিতে আমরা ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করেছি। আপনাদেরকে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য সর্বোচ্চ সাহায্য করার চেষ্টা করেছি। আশা করছি আপনারা উপকৃত হবেন। আপনাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর আমরা দিয়ে থাকি। তাই বিভিন্ন রকম তথ্য জানতে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করতে পারেন। নিজে জানুন, অন্যকে জানান। আপনাদের সুস্বাস্থ্য এবং সৌন্দর্য কামনা করছি। লেখাটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।




Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url