ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম

 আমরা অনেকেই ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে জানিনা। বিশেষ করে যারা নতুন এটি ব্যবহার করে থাকে তাদের জন্য ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে জানা জরুরী। তাই আপনাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেলে ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

আপনি যদি শেষ পর্যন্ত আমাদের সঙ্গে থাকেন তাহলে ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন। তাহলে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

কনটেন্ট সূচিপত্রঃ ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম - ফেস পাউডার কোনটা ভালো

ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম - ফেস পাউডার কোনটা ভালোঃ ভূমিকা

আমাদের মেকআপ বক্সে ফেস পাউডার থাকে। আমরা অনেকেই ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে জানিনা। যার ফলে এটি সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে পারি না। আজকের এই আর্টিকেলে ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম, লুজ পাউডার ব্যবহারের নিয়ম, কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহারের নিয়ম, শঙ্খ পাউডার ব্যবহারের নিয়ম, ফেস পাউডার এর নাম, তৈলাক্ত ত্বকে ফেস পাউডার, ফেস পাউডার কোনটা ভালো এ বিষয় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম

ফেস পাউডার সেটিং পাউডার নামে পরিচিত। ফেজ পাউডার সাধারণত ফাউন্ডেশন ওপর প্রয়োগ করা হয়। ফেস পাউডার আপনার মেকআপ কে দীর্ঘস্থায়ী করার জন্য ব্যবহার করা হয়। ভারে মেকআপ করতে না চাইলে মশ্চারজায় লাগিয়ে নিতে পারেন। ফেস পাউডার আপনার মুখে এটি দিতে সাহায্য করে থাকে।

আরো পড়ুন ঃ যৌবন ধরে রাখার উপায়

বিভিন্ন রকমের ফেস পাউডার রয়েছে আপনি আপনার ত্বকের জন্য কোন ধরনের ফেস পাউডার ব্যবহার করবেন সেটা আপনার ব্যক্তিগত বিষয়। আপনাকে লক্ষ্য রাখতে হবে আপনার ত্বকে কোন ফেস পাউডারটি সবথেকে বেশি মানায় এবং সুট করে। সে অনুযায়ী আপনাকে ফেস পাউডার ব্যবহার করতে হবে।

ফেস পাউডার সাধারণত উজ্জ্বল করতে এবং মুখে বিভিন্ন রকমের দাগ এবং ব্রণ লুকাতে ব্যবহার করা হয়। এটি নিস্তেজ ত্বককে পুনরুজ্জীবিত করতে ব্যবহার করা হয়। এছাড়া চোখের নিচের বিভিন্ন রকমের দাগ দূর করতে এটি ব্যবহার করা হয়।

লুজ পাউডার ব্যবহারের নিয়ম

অনেকেই লুজ পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে জানেনা। লুজ পাউডারের কথা শুনে সবার প্রথমে বেকিং এর কথা মাথায় আসে। লুজ পাউডার দিয়ে আন্ডার আই, টি-জোন এরিয়া বেইক করা হয়। এছাড়া মুখের অতিরিক্ত তেল রিমুভ করতে এটি ব্যবহার করা হয়। লুজ পাউডার ব্যবহারের মেকআপ বসে যায় খুব সহজে।

এটি সাধারণত ব্রাশ পাফ যেকোনো দিয়েই লাগানো যায়। লম্বা সময়ের জন্য মেকআপ লুক চাইলে আপনাকে এই পাউডার ব্যবহার করতে হবে। কারণ এটি লম্বা সময় ধরে মেকআপ ধরে রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এছাড়া যাদের তৈলাক্ত ত্বক রয়েছে তাদের মুখের তৈলাক্ত জায়গায় এই পাউডারটি ব্যবহার করা যায়।

এছাড়া যদি তৈলাক্ত ত্বক নিয়ে রোদে বের হওয়া যায় তাহলে এই পাউডার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এর জন্য মেকআপ করার সময় আপনাকে লুক পাউডারটি ভালোভাবে মুখে লাগাতে হবে। ভালোভাবে মুখে লাগাতে পারলে এটি যেকোনো পরিস্থিতিতেই ভালোভাবে টিকে থাকবে।

কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহারের নিয়ম - শঙ্খ পাউডার ব্যবহারের নিয়ম

মেকআপ বক্সের খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হলো কমপ্যাক্ট পাউডার। এটি দেওয়ার আগে অবশ্যই আমাদের কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহারের নিয়ম রয়েছে। পরিমাণ মতো পাউডার স্পঞ্জ করে নিয়ে ত্বকে লাগাতে হবে। প্রথমবার দেওয়ার সময় যাতে মুখে সব জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে সেটা খেয়াল রাখতে হবে।

এরপর ধীরে ধীরে ব্লেন্ড করে নিন মুখে। এতে করে ত্বকের সব জায়গায় পাউডার লেগে যাবে। এর জন্য ফ্লাফি পাউডার ব্রাশ ও ব্যবহার করতে পারেন। ব্রাশের মাথায় পাউডার নিয়ে ছড়িয়ে দিতে হবে মুখে। এরপর সেই পাউডার পুরো মুখে লাগিয়ে নিতে হবে। এভাবে আপনাকে কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহারের নিয়ম মেনে ব্যবহার করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ ওপেন পোরস দূর করার উপায়

এছাড়া আপনি যদি শঙ্খ পাউডার ব্যবহার করেন তাহলে শঙ্খ পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে আপনাকে প্রথমে ধারণা নিতে হবে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতেও রিস্কেল দূর করার জন্য এটি ব্যবহার করা হয়। প্রতিদিন গোসলের সময় শঙ্খ গুড়া আর সমপরিমাণ মুলতানি মাটি পানিতে মিশিয়ে এরপরে মুখে মাসাজ করতে পারেন।

ফেস পাউডার এর নাম - ফেস পাউডার কোনটা ভালো

ফেস পাউডার হল বেসিক মেকআপ আইটেম। যার মাধ্যমে মুখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করা যায় এ ছাড়া মুখের বিভিন্ন রকমের দাগ দূর করতে ব্যবহার করা হয়। এটি ব্যবহার করার জন্য ফেস পাউডার এর নাম জেনে রাখা জরুরী। আপনাদের সুবিধার্থে ফেস পাউডার এর নাম এবং ফেস পাউডার কোনটা ভালো উল্লেখ করা হলো।

  • কম্প্যাক্ট পাউডার
  • লুজ পাউডার
  • প্রেসড পাউডার
  • বিবি পাউডার
  • শিমার পাউডার
  • ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার

তৈলাক্ত ত্বকের ফেস পাউডার

তৈলাক্ত ত্বকের ফেস পাউডার ব্যবহারের জন্য বেশ কয়েকটি ফেস পাউডার রয়েছে। এগুলো ব্যবহার করলে তৈলাক্ত ত্বক খুব সহজেই দূর করা যায়। নিচে আপনাদের সুবিধার্থে তৈলাক্ত ত্বকে ফেস পাউডার সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

ব্লাটিং পেপার -- আপনি যদি তৈলাক্ত ত্বকের ঝটপট তেলতলে ভাব কমাতে চান তাহলে এটি ব্যবহার করতে পারেন। এই কাগজগুলো খুব তাড়াতাড়ি আপনার তর থেকে তৈলাক্ত ভাব গুলোকে শুষে নেই। যার ফলে মেকআপ ছাড়াই যে কোন অবস্থাতে আপনি আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে পারবেন।

ম্যাটিফাইং লুজ পাউডার -- আপনার ত্বক যদি অতিরিক্ত পরিমাণে তৈলাক্ত থাকে তাহলে লুজ পাউডার বেশ কার্যকর এটি কমানোর জন্য। আপনি যদি আপনার ত্বকে তৈলাক্ত ভাব দূর করতে চান এবং মশ্চারাইজার করতে চান তাহলে এই পাউডারটি ব্যবহার করতে পারেন। মুখে লাগালে এটি তৈলাক্ত ভাব সুসে নাই এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।

ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম - ফেস পাউডার কোনটা ভালোঃ উপসংহার

ফেস পাউডার ব্যবহারের নিয়ম, ফেস পাউডার কোনটা ভালো? তৈলাক্ত ত্বকে ফেস পাউডার, ফেস পাউডার এর নাম, কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহারের নিয়ম, শঙ্খ পাউডার ব্যবহারের নিয়ম, লুজ পাউডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আশাকরি আপনারা আত্ম বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

আরো পড়ুনঃ ব্ল্যাকহেডস দূর করার উপায়

আপনাদের বিষয়গুলো জানাতে পেরে আমরা আনন্দিত। আপনার এবং আপনার পরিবারের সুস্থতা কামনা করে আজকের মত এখানেই শেষ করছি ধন্যবাদ। এরকম আর্টিকেল আরো পড়তে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ফলো করতে থাকুন।২০৮৭৬

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url