মোবাইল লক করার নিয়ম

 মোবাইল লক করার নিয়ম আমরা অনেকেই জানিনা। আজকের এই আর্টিকেলে মোবাইল লক করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। আপনি যদি আপনার মোবাইল লক করতে চান তাহলে মোবাইল লক করার নিয়ম কোন সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন।

সূচিপত্রঃ মোবাইল লক করার নিয়ম - মোবাইল লক সফটওয়্যার

ভূমিকাঃ মোবাইল লক করার নিয়ম - মোবাইল লক সফটওয়্যার

আমরা অনেকেই মোবাইল লক করতে চায় আমাদের নিজের পার্সোনাল জিনিস সবার কাছ থেকে লুকিয়ে রাখার জন্য। কিন্তু অনেকে আছে যারা মোবাইল লক করার নিয়ম সম্পর্কে জানে না। তাদের জন্য আজকেরে আর্টিকেলে মোবাইল লক করার নিয়ম, মোবাইল লক সফটওয়্যার, গ্যালারি লক করার নিয়ম, মোবাইল লক কোড এবং কিভাবে অ্যাপ লুকানো যায় এ বিষয়গুলো সম্পর্কে আলোচনা করা হবে। তাহলে চলুন উক্ত বিষয়গুলো জেনে নেওয়া যাক।

মোবাইল লক করার নিয়ম

সবার আগে আমরা মোবাইল লক করার নিয়ম আমাদের এই আর্টিকেলের মূল আলোচনার বিষয় সম্পর্কে আপনাদের জানাবো। আপনি যদি আপনার মোবাইল লক করতে চান তাহলে মোবাইল লক করার নিয়ম গুলো বিস্তারিতভাবে জেনে নিন। তাহলে চলুন মোবাইল লক করার নিয়ম গুলো জেনে নেওয়া যাক।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে জিমেইল পাসওয়ার্ড রিকভারি করতে হয় জেনে নিন

আমরা জানি যে মোবাইল কয়েক রকমের লক দেওয়া যায় বর্তমান সময়ে। আপনি যদি এন্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে যে সব লক ব্যবহার করতে পারবেন সেগুলো হলোঃ

  • স্ক্রিন লক
  • ফেস লক
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট লক
  • স্মার্ট লক

আমরা সাধারণত স্ক্রিন লক এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট লক বেশি দিয়ে থাকি। তাহলে চলুন আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনাদের স্ক্রিন লক এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট লক কিভাবে দিবেন বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নেওয়া যাক।

১। প্রথমে আপনার মোবাইল থেকে আপনাকে সেটিং অপশনে প্রবেশ করতে হবে। সেটিং এ প্রবেশ করার পরে Security and Location অপশনে ক্লিক করতে হবে।

২। উক্ত অপশনে প্রবেশ করার পরে আপনি কোন লক দিতে চান সেটিকে সিলেক্ট করতে হবে। আপনি যদি স্ক্রীন লক দিতে চান তাহলে স্ক্রিন লক সিলেক্ট করবেন। আবার আপনি যদি ফ্রেশ লক দিতে চান তাহলে ফেসলক সিলেক্ট করবেন।

৩। স্ক্রিন লকে সিলেক্ট করার পরে আপনি অনেকগুলো অপশন দেখতে পাবেন। মোবাইলের স্ক্রিন লক করার অনেকগুলো সিস্টেম রয়েছে। আপনারা এন্ড্রয়েড মোবাইলের স্ক্রিন লক করার জন্য Swipe Pattern, Pin এবং পাসওয়ার্ড লক করতে পারবেন। এখন আপনি কোন লক করবেন সেটিকে সিলেক্ট করতে হবে।

৪। এভাবে আপনার খুব সহজে এন্ড্রয়েড খাও খাওমোবাইলে লক সিস্টেমটি চালু করতে পারবেন। প্রিয় বন্ধুরা আশা করি আপনারা মোবাইল লক করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। ওপরের নিয়ম অনুযায়ী কাজগুলো সম্পন্ন করলে খুব সহজেই মোবাইল লক হয়ে যাবে।

মোবাইল লক সফটওয়্যার

আপনি কি মোবাইল লক সফটওয়্যার সম্পর্কে জানতে চান? তাহলে আজকের এই আর্টিকেলে আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি আমাদের এই আর্টিকেল থেকে মোবাইল লক সফটওয়্যার সম্পর্কে জানতে পারবেন। তাহলে চলুন মোবাইল লক সফটওয়্যার সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

App Lock

আপনি যদি আপনার মোবাইল বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ লক করতে চান তাহলে এই অ্যাপটি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি এই অ্যাপ ডাউনলোড করে পিন, প্যাটার্ন এবং পাসওয়ার্ড সেট করতে পারবেন। এছাড়া আপনি এখানে ফিঙ্গারপ্রিন্ট পাসওয়ার্ড সেট করতে পারবেন। অ্যাপ লক দিয়ে আপনি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ্লিকেশন, গ্যালারি, জিমেইল সেটিং, কল এ ছাড়া আরো অনেকগুলো অ্যাপস লক করতে পারবেন।

Smart App Lock

আপনি যদি আপনার মোবাইলের জন্য মোবাইল লক সফটওয়্যার খুজে থাকেন তাহলে এটি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি হলো একটি মোবাইল লক অ্যাপ্লিকেশন। আপনি এই অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে আপনার মোবাইলের বিভিন্ন রকমের প্রয়োজন অ্যাপস লক করে রাখতে পারবেন। আপনি এখানে লক স্ক্রিন এবং কাস্টম লক স্ক্রীন করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করতে হয় জেনে নিন

Hexlock App Lock

আপনি যদি এন্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করে থাকেন তাহলে এই আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি এই অ্যাপস ব্যবহার করে ফিঙ্গারপ্রিন্ট, পিন এবং প্যাটার্ন এর মাধ্যমে লক সেট করতে পারবেন। এছাড়া আপনার প্রয়োজনীয় বিভিন্ন রকমের অ্যাপ লক করে রাখতে পারবেন।

গ্যালারি লক করার নিয়ম

আপনি যদি আপনার মোবাইলের গ্যালারি লক করতে চান তাহলে আপনি কয়েকটি উপায়ে আপনার ফোনের গ্যালারি লক করতে পারবেন। আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি গ্যালারি লক করার নিয়ম গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিতে পারবেন।

১। মোবাইল ফোনের ডিফল্ট অ্যাপ বা সেটিং ব্যবহার করে আপনি আপনার মোবাইলের গ্যালারি লক করতে পারবেন।

২। প্লে স্টোর থেকে বিভিন্ন রকমের অ্যাপ ডাউনলোড করে গ্যালারি লক করতে পারবেন।

আমরা প্রথমেই আপনার মোবাইল থেকে ডিফল্ট অ্যাপ বা সেটিং ব্যবহার করে কিভাবে আপনার গ্যালারি লক করবেন সে বিষয়টি সম্পর্কে আলোচনা করব। আপনাদের জন্য নিচের গ্যালারি লক করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

১। প্রথমে আপনাকে আপনার মোবাইলের সেটিংস অপশনে যেতে হবে।

২। এরপরে সেটিং অপশনে গিয়ে Password & biometrics এই অপশনটি খুঁজে বের করতে হবে অথবা আপনি আপনার মোবাইল থেকে Security এই অপশনটিতে ক্লিক করতে পারেন।

৩। উপরের দুইটি অপশনের মধ্যে যেকোনো একটিতে গেলে নিচের দিকে আসলে আপনি App lock নামে একটি অপশন দেখতে পাবেন। আপনি যদি অ্যাপ লক করতে চান তাহলে উক্ত অপশনে ক্লিক করতে হবে।

৪। এরপর অ্যাপ লকে ঢোকার পর আপনাকে একটি পাসওয়ার্ড সেট করতে হবে সাধারণত আপনি এখানে ফিঙ্গারপ্রিন্ট ব্যবহার করতে পারেন আবার নাও পারেন শুধু পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু একসাথে আপনি কে পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। কারণ কখনো যদি আপনার ফিঙ্গারপ্রিন্ট কাজ না করে তখন পাসওয়ার্ড দিয়ে খুলতে হবে।

মোবাইল লক কোড

অনেক সময় আমাদের মোবাইলের লক কোড ভুলে যাই। তখন আমরা সকলে চিন্তায় পড়ে যাই কারণ মোবাইলে আমাদের বিভিন্ন রকমের প্রয়োজনীয় তথ্য থাকে। তাই এ ধরনের সমস্যায় না পড়তে হয় তাই আমাদের এই সমস্যা দূর করার জন্যই আজকের এই আর্টিকেল।

আরো পড়ুনঃ পায়ের গোড়ালি ফাটা দূর করার ঘরোয়া উপায়

আপনি যদি কখনো মোবাইলের লক কোড ভুলে যান তাহলে আনলক মি সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে মোবাইল লক কোড খুব সহজে খুলে নিতে পারবেন। প্রথমেই আপনাকে এই অ্যাপসটি ডাউনলোড করে নিতে হবে। এবার আমাদের লক কোড বের করতে হবে। প্রথমেই আমাদের সফটওয়্যারটি ওপেন করতে হবে এরপরে আনলক এর উপর ক্লিক করতে হবে।

এবার সফটওয়্যার টি অটোমেটিক বিভিন্ন কোড বসিয়ে বসিয়ে আপনার আসল কোড বের করতে পারবে। এরকম প্রতিটি কোড বসিয়ে বসিয়ে বের করতে সফটওয়্যার বেশ কয়েক মিনিট সময় লাগবে। তার জন্য অবশ্যই আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে। এরপরে কিছুক্ষণ পর আপনার মোবাইল কোড আপনি জানতে পারবেন।

কিভাবে অ্যাপ লুকানো যায়

কিভাবে অ্যাপ লুকানো যায়? এ বিষয়টি সম্পর্কে অনেকেই জানতে চায়। কারণ আমাদের মোবাইলে বিভিন্ন রকমের অ্যাপস থাকে। সাধারণত অনেক সময় আমাদের কিছু কিছু অ্যাপস লুকিয়ে রাখতে হয়। তাই আজকের এই আর্টিকেলে কিভাবে অ্যাপ লুকানো যায়? বিষয়টি সম্পর্কে আলোচনা করব। তাহলে চলুন কিভাবে অ্যাপ লুকানো যায়? জেনে নেওয়া যাক।

আপনি যদি আপনার মোবাইলের অ্যাপস গুলোকে লুকিয়ে রাখতে চান তাহলে প্লে স্টোরে গিয়ে বিভিন্ন রকমের অ্যাপ হাইড করার অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করে আপনি অ্যাপ গুলো লুকিয়ে রাখতে পারবেন। এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় ফাইলগুলো লুকিয়ে রাখতে পারবেন।

এমন একটি অ্যাপস হলো App Hider যদি আপনি আপনার মোবাইল অ্যাপস লুকিয়ে রাখতে চান তাহলে এই এপ্লিকেশনটি খুবই কার্যকরী। মূলত এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনি শুধুমাত্র আপনার স্মার্টফোনের মত থাকা নির্দিষ্ট কোন অ্যাপকে লুকিয়ে রাখতে পারবেন না এর পাশাপাশি আপনি বিভিন্ন রকমের ফিচার যুক্ত করতে পারবেন।

এছাড়া আরও একটি অ্যাপ লুকানোর অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে সেটি হলো Dialer Lock ব্যবহার করে আপনি আপনার মোবাইলের অ্যাপস এবং অ্যাপ্লিকেশন গুলো লুকিয়ে রাখতে পারবেন। এই অ্যাপস ব্যবহার করে আপনার অনুমতি ছাড়া কেউ আপনার মোবাইলের কোন অ্যাপস ঢুকতে পারবে না এবং খুঁজে পাবেনা।

আমাদের শেষ কথাঃ মোবাইল লক করার নিয়ম - মোবাইল লক সফটওয়্যার

প্রিয় বন্ধুরা আজকের এই আর্টিকেলে মোবাইল লক করার নিয়ম, মোবাইল লক সফটওয়্যার, কিভাবে অ্যাপ লুকানো যায়? মোবাইল লক কোড, গ্যালারি লক করার নিয়ম বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আপনি যদি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তাহলে ইতিমধ্য বিষয়গুলো জানতে পেরেছেন। যদি না পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ে ধন্যবাদ।


Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url